রুকমা, শ্রুতি নাকি স্বৈরিতি? কে হলো ‘পরম সুন্দরী’ দেখেনিন

হালফিলের নতুন সিনেমাগুলির মধ্যে বলিউডের ‘মিমি’ (Mimi) ছবির আইটেম ডান্স ‘পরম সুন্দরী’র (Param Sundari) ট্রেন্ড চলছে সোশ্যাল মিডিয়াতে। ‘মিমি’তে ‘পরম সুন্দরী’ কৃতি শ্যাননের পারফরম্যান্স দেখেছেন দর্শক।

বলিউডের ‘পরম সুন্দরী’র নাচে মুগ্ধ দর্শক। তবে টলিউডের ‘পরম সুন্দরী’রাই বা কম যান কিসে? বিশেষত দেশের মাটি (Desher Mati) ধারাবাহিকের নায়িকারাও ‘পরম সুন্দরী’ হওয়ার লড়াইয়ে শামিল।

টেলিভিশনের অভিনেত্রী শ্রুতি দাস (Shruti Das) সম্প্রতি নিজের ইনস্টাগ্রাম প্রোফাইলে একটি নাচের ভিডিও শেয়ার করেছেন। শুটিংয়ের ফাঁকে ফ্লোরেই ‘পরম সুন্দরী’ গানের সঙ্গে নেচে মাতিয়েছেন শ্রুতি। তবে তিনি শুধু একা নন।

তার দুই সহ অভিনেত্রী রুকমা রায় (Rooqma Roy) এবং স্বৈরিতি বন্দ্যোপাধ্যায়ও (Sairity Bandopadhyay) অংশগ্রহণ করেছেন এই নাচে। নিছক মজার ছলেই শুটিং ফ্লোরে ‘পরম সুন্দরী’ নাচে ঝড় তুললেন তিন সুন্দরী।

একসাথে তিন সুন্দরীর নাচ দেখে নেটিজেনরাও বেশ মুগ্ধ হয়েছেন। তাদের নজরে তিনজনই ‘পরম সুন্দরী’ হওয়ার দাবী রাখেন। উল্লেখ্য, শ্রুতি দাস অভিনয়ের পাশাপাশি গান এবং নাচেও পারদর্শিনী।

অভিনয় জগতে পা রাখার আগে নাচই ছিল তার সাধনার একমাত্র ক্ষেত্র। তবে নিজের প্রচেষ্টায় টেলিভিশনে কাজ করার সুযোগ পেয়েছেন তিনি। টেলিভিশনের পর্দার জনপ্রিয় মুখ হয়ে উঠতে পেরেছেন। তবে তার জন্য অবশ্য তাকে কম কথা শুনতে হয়নি।

টেলি অভিনেত্রী শ্রুতি দাস বারবার সংবাদমাধ্যমের শিরোনামে দখল করেছেন। ইন্ডাস্ট্রিতে ত্বকের রঙ নিয়ে রেসিজমের শিকার হতে হয়েছে অভিনেত্রীকে। তবে তিনি কখনও চুপ থাকেননি।

বরং সমাজের মানসিকতার বিরুদ্ধে বারংবার রুখে দাঁড়িয়েছেন। পেয়েছেন অগুনতি মানুষের ভালোবাসা এবং সমর্থন। তবে এবার অবশ্য ‘পরম সুন্দরী’ নাচের দরুণ লাইম লাইটে এলেন অভিনেত্রী। তার নাচের প্রশংসায় পঞ্চমুখ নেটিজেনরা।

শুধু ত্বকের রঙের জন্যই নয়, ধারাবাহিকের গল্পের মোড় নিয়েও নেটিজেনদের সফট টার্গেট হতে হয় শ্রুতিকে। ধারাবাহিকের নোয়া-কিয়ান জুটির সঙ্গে রাজা-মাম্পি জুটির রেষারেষি বাঁধিয়ে দিতে চান তারা!

রাহুল অরুণোদয় ব্যানার্জি এবং রুকমা রায়কে নিয়ে রাজা-মাম্পি জুটি দর্শক মহলে বরাবর হিট। সময়ের সঙ্গে সঙ্গে রাজা-মাম্পি জুটির অনুরাগীর সংখ্যা বেড়েছে। তবে তারাও যেন নোয়া অর্থাৎ শ্রুতিকে ঠিক পছন্দ করেন না।

নোয়া অর্থাৎ শ্রুতি দাস এবং কিয়ান অর্থাৎ দিব্যজ্যোতি দত্তকে সোশ্যাল মিডিয়ায় যেভাবে কুৎসিত ট্রোল করা হয় তার বিপক্ষে মুখ খুলেছিলেন রাজা ওরফে রাহুল।

তিনি এই মানসিকতার বিরোধিতা করে বলেন, “অনেকদিন অনেক কিছু সহ্য করছি,কিন্তু রাজা-মাম্পি কে ভালোবাসার অর্থ যদি হয় আমার সহ অভিনেতা/অভিনেত্রীদের অপমান করা…রক্ষে করুন,চাই না এমন ভালোবাসা”। রাহুলকে সমর্থন করে রুকমাও বলেন, “ঠিক কথা বলেছ, সব কিছুর একটা লিমিট থাকা উচিত।”

Related Posts

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *