রনিত রয়ের আমির খানের বডিগার্ড থকে সফল বলিউড অভিনেতা হয়ে উঠার গল্প ।

দর্শকের মনে তিনি আজও ‘আদালত’ ধারাবাহিকের ‘কেডি পাঠক’ হিসেবেই পরিচিত হলেও আজ বলিউডের অন্যতম সফল অভিনেতা রনিত রায়।

বলিউডের অন্যান্য বহিরাগতদের মত রনিত রায়ের পক্ষেও বলিউডে চলার পথটা খুব একটা মসৃণ ছিল না। জানেন কি একটা সময় বলিউড তারকা আমির খানের দেহরক্ষী হিসেবে কাজ করতেন রনিত রায়?

রনিত রায়ের জীবনের সেই অধ্যায়ের কথা অনেকেরই অজানা। তিনি যখন ইন্ডাস্ট্রিতে প্রথম এসেছিলেন, তখন তার দু চোখে ছিল অনেক স্বপ্ন। গাড়ি, বাড়ি, নামডাক, এসবের স্বপ্ন দেখতেন তিনি। তবে স্বপ্ন পূরণের পথটা তার কাছে পরিষ্কার ছিল না। অনেক ঘাম ঝড়িয়ে তবে আজ তিনি এই জায়গায়। একসময় আমির খানের দেহরক্ষী হিসেবেও কাজ করতে হয়েছে তাকে।

নিজের পূর্ব জীবন সম্পর্কে একটি সংবাদমাধ্যমের কাছে সাক্ষাৎকার দিতে গিয়ে রনিত জানিয়েছেন, “শখ ছিল আমার বড় গাড়ি থাকবে, মেয়েরা আমার নাম ধরে চিৎকার করবে। এরপর বুঝলাম সবটা এত সহজ নয়।

দীর্ঘ ৫-৬ বছর আমার কোনো কাজ ছিল না। পরবর্তী সময়ে বুঝতে পারলাম, অভিনেতা হওয়ার সঙ্গে খ্যাতির কোনো সম্পর্ক নেই।”

অভিনেতা হওয়ার স্বপ্ন তাকে মুম্বাইয়ে এনেছিল। কিন্তু অভিনেতা হতে চাইলেই তো কেউ আর হতে পারেন না। তার জন্য প্রয়োজন কঠোর অধ্যবসায় এবং ধৈর্য। যা তিনি শিখেছিলেন বলিউডের মিস্টার পারফেকশনিস্ট আমির খানের কাছ থেকে। সাক্ষাৎকারে তিনি আরও জানিয়েছেন, “একসময় আমির খানের বডিগার্ড ছিলাম।
তবে আমার সৌভাগ্য যে,আমি আমির খানের সঙ্গে দুই বছর থাকার সুযোগ পেয়েছি। ওনার থেকেই আমার কাজের প্রতি অধ্যাবসায় ও আগ্রহের বিষয়টি শেখা। আমির খান আমার অনুপ্রেরণা”।

আমিরের প্রসঙ্গে বলতে গিয়ে তিনি বলেছেন, “প্রাথমিকভাবে ব্যর্থ হওয়ার পর, আমির আমায় বাস্তবটা দেখান। গাড়ি বাড়ির চিন্তা বাদ দিয়ে অভিনয়ে মন দিই। আরোও শিখতে চেষ্টা করি।” এভাবেই একটু একটু করে নিজের মধ্যে আমূল পরিবর্তন আনেন রনিত। একটা সময় ছিল যখন বলিউডের পরিচালকেরা তাকে ছবিতে নিতে চাইতেন না।

রনিত বলেন, “আমার ম্যানেজার একবার বলেছিলেন, আমরা কেন রনিত রায়কে কাস্টিং করব? জুনিয়র আর্টিস্টরাও তার চেয়ে ভালো।”


কিন্তু রনিত যখন ইন্ডাস্ট্রিতে নিজেকে প্রমাণ করলেন, তখন তারাই আবার তার কাছে কাজের অফার নিয়ে ফিরে আসেন। দু’বছর আগে রনিতকে সিনেমায় অভিনয় করার অফার দেওয়া হয়েছিল। কিন্তু ছবি ভালো নয় বলে তিনি সেই অফার ফিরিয়ে দেন। “আমি প্রস্তাব ফিরিয়ে দিয়েছিলাম কারণ সিনেমাটি ভালো ছিল না”, জানিয়েছেন রনিত রায়।

উল্লেখ্য আমির খানের বর্তমান বডিগার্ড যুবরাজ ঘোরপাদে। তিনি সর্বদা অভিনেতার সঙ্গে ছায়ার মত লেগে থাকেন। তার কাজ অভিনেতাকে সমস্ত আঘাতের হাত থেকে রক্ষা করা। নিজের জীবন বিপন্ন করে হলেও তারকাদের রক্ষা করেন বডিগার্ডরা। একটা সময় এই কাজটিই করতেন রনিত রায়। তবে ভাগ্যের ফেরে আজ তিনি নিজেই একজন তারকা।

Related Posts

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *