ফাঁকা বাড়িতে প্রতিরাতে কিশোরীকে ধ’র্ষণ করতো লম্পট বাবা,মরিয়া হয়ে প্রতিবাদ করলে মেরে ফেলার হুমকি।

নিজের নয়, সৎ মেয়ে। তা বলে এমন আচরণ! বাড়িতে একা পেয়ে কিশোরীকে লাগাতার ধর্ষণ করত বাবা! প্রতিবাদ করলে বা কাউকে জানানোর ভয় দেখালে আবার খুনের হুমকি দেওয়া হত বলে অভিযোগ।

অভিযুক্তকে গ্রেফতার করেছে পুলিস। ঘটনাটি প্রকাশ্যে আসার পর শোরগোল পড়ে গিয়েছে দক্ষিণ ২৪ পরগনার ক্যানিং-এ।

জানা গিয়েছে, অভিযুক্তের বাড়ির ক্যানিং-র তালদি এলাকায়। প্রথম স্ত্রী চলে যাওয়ার স্বামী পরিত্যক্তা এক মহিলাকে বিয়ে করে সে। মেয়ের নিয়ে একাই থাকতেন তিনি। কলকাতার একটি বেসরকারি হাসপাতালে কাজ করতেন।

বেশিরভাগ দিনই রাতে ডিউটি থাকত। দ্বিতীয় বিয়ের পর প্রথমপক্ষের মেয়ে-কে নিয়ে অভিযুক্তের বাড়িতে চলে আসেন ওই মহিলা। কিন্তু এমন ঘটনা যে ঘটবে, তা কে জানত!

অভিযোগ, ফাঁকা বাড়িতে প্রতিরাতে ওই কিশোরীকে ধর্ষণ করত তার সৎ বাবা। মরিয়া হয়ে যখন প্রতিবাদ করত কিংবা কাউকে জানানোর ভয় দেখাত, তখন খুনের হুমকি দিত অভিযুক্ত। ভয়ের প্রথমে কাউকে কিছু জানায়ওনি নির্যাতিতা।

শেষপর্যন্ত অবশ্য় মুখ খোলে সে। সবটা জানায় মা-কে। মহিলার সমিতির সহযোগিতায় থানায় অভিযোগ দায়ের করেন অভিযুক্তের স্ত্রী। অভিযুক্তকে ইতিমধ্যেই গ্রেফতার করেছে পুলিস। দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির দাবি তুলেছেন স্থানীয়রা।

Related Posts

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *