নিখিলের সাথে যদি শুধু মাত্র ‘সহবাস’ হয় তবে মাথায় সিঁদুর কেন?

নুসরত ও সমালোচনা বা রগরগে কাহিনী সবই সমার্থক। পিছু ছাড়ছে না সমালোচনা ও কটাক্ষ। নতুন মা হয়ে যেন আরো কড়া কড়া সমালোচনার মুখোমুখি হতে হচ্ছে থাকে।

বিয়েকে সহবাস বলে একা থাকা শুরু করেন নুসরত। এরপরেই গুঞ্জন যে তিনি ও যশ একসঙ্গে ডেট করছেন এবং নতুন রসায়ন তৈরি হয়েছে।

এছাড়াও নিখিলের কথার সারমর্ম অনুযায়ী, এসওএস কলকাতা শ্যুটিং এর সময় থেকেই অস্বাভাবিক আচরণ করতেন নুসরত। এরপরই ঘর ছাড়েন। সোশ্যাল মিডিয়া থেকে নিখিলের যাবতীয় ছবি ডিলিট করেন তারকা সাংসদ নুসরত জাহান।

জানুয়ারি মাসে রাজস্থান ঘুরতে যান। ছবি একক দিলেও যশের রাজস্থান ট্রিপের কিছু ছবি দেখে দর্শকরা দুইয়ে দুইয়ে চার করে নেয়। এর পরেই বিয়ে-সহবাস-ডিভোর্স নিয়ে কাদা ছোঁড়াছুঁড়ি চলে।

তারমধ্যে শোনা যায় নুসরত প্রেগন্যান্ট। খবরটা সত্যি না মিথ্যে বুঝতে বুঝতে প্রায় ৭ মাস কেটে যায়। অবশেষে নুসরতের বেবি বাম্পের ছবি প্রকাশ্যে আসে এবং চলতি বছরের আগস্ট মাসের শেষ সপ্তাহে একটি পুত্র সন্তানের জন্ম দেন। নাম রাখেন ঈশান।

এরইমধ্যে গুঞ্জন শুরু হয়ে যায় যশের জন্যেই নিখিলের ঘর ভাঙেন নুসরত এবং বিয়েকে সহবাস তকমা দিয়ে জঘন্য অপরাধ করেছেন বলে দাবি বহু মানুষের। এই ঘটনায় রাজনীতি মহলের নাম জড়ালেও শেষ পর্যন্ত নুসরত জয়ী হন।

গতকাল, একটি স্যালন উদ্বোধনে এসে জানিয়েই দেন যশ দাশগুপ্ত ও তিনি তাদের সন্তানকে সামলাচ্ছেন এবং যশ খুবই প্রোটেক্টিভ।

আপাতত যশ নুসরত ও ঈশান একই ছাদের তলায় রয়েছেন। এতে করে ঈশানের পিতৃ পরিচয় পাওয়া গেলেও নুসরত সেই আম জনতার কটাক্ষের মুখেই রয়ে গেলেন। সোশ্যাল মিডিয়া জুড়ে শুধুই নিন্দার ঝড়।

এরই মধ্যে, নুসরতের পোস্ট করা একটি ভিডিও ফের নিন্দার ঝড়কে উস্কে দেয়। একটি সাদা টপ ও হলুদ স্কার্টে তিনি ভিডিও করেছেন। হ্যাশট্যাগ দিয়ে রাজস্থান লিখেছেন। অর্থাৎ সেই জানুয়ারি মাসের ভিডিও।

সবই ভালো, কিন্তু তার সিঁথিতে সিঁদুর কেন? সিঁদুর নিয়েই কি রাজস্থান সফর সেরেছেন? যদি নিখিলের সঙ্গে বিয়ে তিনি না মানেন এবং সেটি যদি শুধু মাত্র সহবাস হয় তবে সিঁদুর কেন? প্রশ্ন আমজনতার এবং নেট জনতার।

Related Posts

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *