তারা আমার শরীর একটু স্পর্শ করতে চায়ঃ সোহিনী সরকার

তারকাদের নিয়ে সাধারণের অনন্ত কৌতূহল। তাদের ঘিরে অনুরাগীদের প্রশ্নেরও বিরাম নেই। তবে তারকা হতে গিয়ে কতকিছু পিছনে পেলে সামনে এগিয়ে যেতে হয়, তা সাধারণরা জানেনই না!

কলকাতার জনপ্রিয় অভিনেত্রী সোহিনী সরকার দীর্ঘ পথ পেরিয়েছেন। আর এই যাত্রাপথে কুৎসিত মানসিকতা, অবাঞ্ছিত স্পর্শ, সম্মতি লঙ্ঘনের মুখোমুখি হয়েছেন বারবার। সেই যাত্রার গল্প এবার মুখ ফুটে বললেন তিনি। শোনালেন তীক্ত অভিজ্ঞতার কথা।

সোহিনী বলেন, মিডিয়া নিয়ে সবার যেমন ধারণা, আমারও তেমনই ছিল। তাই কাজ করতে এসে নিজেকে সবসময় গুটিয়ে রাখতাম। সবসময় নিজেকে বাঁচিয়ে রাখারই চেষ্টা করেছি।

কেউ ইয়ার্কি মারার সূত্র ধরে বাজে ইঙ্গিত করতেন। যখন আমি টিভি সিরিয়াল করেছি, তখন ভালো মানুষ যেমন পেয়েছি, তেমনি এরকম বাজে মানুষও দেখেছি। যারা অকারণে একটু স্পর্শ করতে চায়।’

অভিনেত্রী বয়ানে যোগ করেন, ‘এতে যদি সাড়া না দেই, তাহলে শুটিং ফ্লোরে এমনভাবে চিৎকার-চেঁচামেচি করে, বকাঝকা করে, সব গুলিয়ে দেয়। এটা আমি প্রথম দিকে বুঝতে পারিনি। কেন আমার সঙ্গে এমনটা করছে।

তখন আমি ছোট, ক্লাস ইলেভেন বা টুয়েলভে পড়ি। কাজটা আমি মনোযোগ দিয়ে করার চেষ্টা করেছি। কিন্তু সে আমাকে এত বেশি বকছে, আর আমি বুঝতেও পারছি না, আসলে কেন বকছে।’

এই বকাঝকা ছিল মূলত সোহিনীকে বাগে আনার ফাঁদ। তিনি বলেন, ‘বকার পর আবার যখন মেকআপ রুমে যাচ্ছি, সে আমার সঙ্গে খুব আন্তরিক হওয়ার চেষ্টা করছে। যাতে তার জালে খুব সহজেই ধরা দেই।’

সোহিনী জানান, ২০০৫-০৬ সালের দিকে এমনটা হয়েছিল তার সঙ্গে। কিন্তু তখন সোশ্যাল মিডিয়া এত অ্যাকটিভ ছিল না বিধায় সেভাবে বলতে পারেননি।

অবশ্য পরবর্তীতে তিনি যখন প্রতিষ্ঠা পেয়ে যান, তখন আর ওই ধরণের মানুষকে দেখেননি বলে জানান। তার মতে, ওইসব লোকের মধ্যে কাজের যোগ্যতা ছিল না। তাই হারিয়ে গেছে।

Related Posts

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *