এবারে ফেঁসে যাচ্ছেন শাহরুখের বাক্তিগত সহকারী

মাদক মামলায় (Drug Case) বারংবার উঠে এসেছে শাহরুখ খানের (Shah Rukh Khan) ম্যানেজার পূজা দাদলানির (Pooja Dadlani) নাম।

আরিয়ান জেলে থাকাকালীন তাঁকে একবার ডেকে পাঠিয়েছিল নারকোটিক্স কন্ট্রোল ব্যুরো (NCB), তবে সেটা জিজ্ঞাসাবাদ নয়। আরিয়ান খানের কিছু তথ্য চেয়ে পাঠিয়েছিল এনসিবি (NCB)। এবার পূজা দাদলানিকে তলব করল মুম্বই পুলিস (Mumbai Police)।

মুম্বই পুলিসের বিশেষ তদন্তকারী দলের তদন্তে উঠে এসেছে নয়া তথ্য। পূজা বিরুদ্ধে ঘুষ দেওয়ার অভিযোগ এনেছে মুম্বই পুলিস। সেই বিষয়েই তাঁকে তলব করল মুম্বই পুলিস। তবে শুধু মুম্বই পুলিসই নয়, খুব শীঘ্রই পূজাকে ডেকে পাঠাতে পারে এনসিবিও।

ড্রাগ মামলায় মুম্বই পুলিসের বিশেষ তদন্তকারী দল একটি সিসিটিভি ফুটেজ খুঁজে পেয়েছে। যেখানে নীল রঙের একটি গাড়ি নজরে আসে, এছাড়াও ছিল আরো দুটি গাড়ি। তদন্তের পর জানা যায় ঐ তিনটি গাড়ির মালিক পূজা দাদলানি, স্যাম ডিসুজা ও কে.পি.গোসাভি। মুম্বইয়ের লোয়ার প্যারেলে দেখা করেন এই তিনজন।

আরিয়ান খান মাদক মামলায় টাকা আদানপ্রদানের কারণে কেপি গোসাভির বিরুদ্ধে এক নতুন মামলা শুরু করেছে মুম্বই পুলিস। সেই সূত্রেই ডেকে পাঠানো হয়েছে পূজা দাদলানিকে।

গত সপ্তাহেই বম্বে হাইকোর্টে প্রি-অ্যারেস্ট জামিনের আবেদন করেছিলেন স্যাম ডিসুজা। তাঁর দাবি, কেপি গোসাভি আরিয়ান খানকে এনসিবির হেফাজত থেকে বের করার জন্য শাহরুখের ম্যানেজার পূজা দাদলানির থেকে ৫০ লক্ষ টাকা নিয়েছিল।

পরবর্তীকালে সেই টাকা ফেরতও দেয় সে। অন্যদিকে নারকোটিক্স কন্ট্রোল ব্যুরোর বিশেষ তদন্তকারী দলের তলবে হাজিরা দিলেন আরিয়ান খান। হাজিরা না দেওয়ার কারণ হিসেবে আরিয়ান জানিয়েছেন, তাঁর শরীরে করোনার উপসর্গ দেখা দিয়েছে।

একই সঙ্গে হাজিরার তারিখ পিছিয়ে দেওয়ারও আর্জি জানিয়েছেন তিনি। আরিয়ান খানের কেস আরও কয়েকটি মামলার তদন্তভার এনসিবি মুম্বই শাখার কাছ থেকে নিয়ে তুলে দেওয়া হয়েছে সেন্ট্রাল জোনের হাতে। এই কেসগুলোর দায়িত্বে রয়েছেন এনসিবি-র সেন্ট্রাল ইউনিটের ডেপুটি ডিরেক্টর জেনারেল সঞ্জয় সিং।

Related Posts

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *