একই যুবককে বিয়া করতে দুই তরুণীর লঙ্কাকাণ্ড, সমাধানে পঞ্চায়েত। পড়ুন বিস্তারিত।

একই যুবকের সঙ্গে প্রেম দুই যুবতীর। আর কে তাঁকে বিয়ে করবে? সেই নিয়েই তিন পরিবারের মধ্যে ঝামেলা। শেষপর্যন্ত সেই ত্রিকোণ প্রেমের সুরাহা করতে এগিয়ে এল গ্রাম পঞ্চায়েত। টসের মাধ্যমে ঠিক হল, কে ওই যুবককে বিয়ে করবে?

হ্যাঁ, শুনতে অবাক লাগলেও কর্ণাটকে এমনটাই ঘটেছে।

একটি সর্বভারতীয় সংবাদমাধ্যম সূত্রে খবর, ঘটনাটি কর্ণাটকের সকলেশপুর গ্রামের। ২৭ বছর বয়সি ওই যুবকের সঙ্গে গত বছর পাশের গ্রামেরই একটি মেয়ের পরিচয় হয়। এরপর দুজনে সম্পর্কে জড়ায়।

কিন্তু ছ’মাস আগে অন্য একটি মেয়ের প্রেমে পড়েন ওই যুবক। এরপর দুজনের সঙ্গেই প্রেম করতে থাকেন ওই যুবক। কিন্তু কেউই কারওর সম্পর্কে জানতে পারেনি।

আসল ঘটনার সূত্রপাত এরপর থেকেই। ওই যুবককে এক প্রেমিকার সঙ্গে ঘুরতে দেখেন তাঁরই এক আত্মীয়। কিন্তু যুবকের বাড়ির লোক সেই সম্পর্ক মেনে নিতে চায়নি, উলটে যুবকের অন্যত্র বিয়ে দেওয়ার ব্যাপারে মনস্থির করেন।

এদিকে, খবর পেয়ে দুই মেয়ের বাড়ির লোকই ওই যুবকের বাড়িতে আসে। তখনই বিষয়টি সবার সামনে আসে। এরপর গোটা গ্রামে বিষয়টি জানাজানিও হয়ে যায়। শেষপর্যন্ত বিবাদ মেটাতে আসরে নামে গ্রামের পঞ্চায়েত।

কয়েকদিন আগেই প্রথম সালিশি সভা ডাকা হয়, সেখানে ওই যুবককে এই বিষয়ে প্রশ্ন করা হলে, তিনি কার্যত চুপই থাকেন। এই ঘটনার পর দুজনের মধ্যে একজন আবার বিষ খেয়ে আত্মহত্যা করার চেষ্টা করেন। যদিও শেষপর্যন্ত বেঁচে যান। এরপর গত শুক্রবার ফের পঞ্চায়েত সালিশি সভা ডাকে। সেখানেই পঞ্চায়েতের সদস্যরা জানান, টসের মাধ্যমে ওই যুবকের কনে ঠিক করা হবে। আর তাতে যাতে তিন পরিবারই রাজি হয়, সেব্যাপারে তাঁদের সম্মতিও নেওয়া হয়।

জানা গিয়েছে, এরপরই নাকি টসের মাধ্যমে ঠিক হয়, প্রথম প্রেমিকাকেই বিয়ে করবে ওই যুবক। অনেকের মতে, যুবক নিজেই প্রথম যুবতীকে পছন্দের কথা জানিয়ে দেন। শেষপর্যন্ত অবশ্য প্রথম প্রেমিকার সঙ্গেই বিয়ে হয় ওই যুবকের। জানা গিয়েছে, যুবকের অপর প্রেমিকা হাসিমুখেই বিষয়টি মেনে নিলেও ওই যুবককে তাঁর এই কাজের জন্য ভর্ৎসনাও করেন।

Related Posts

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *